বুধবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ফ্রান্স বাংলা প্রেস ক্লাবে’র ব্যানারে জামাতের প্রতিবাদ সভা  » «   ফরাসী পতাকার ৩ টি রং এর মানে কি?  » «   Victor Hugo এর সংক্ষিপ্ত জীবনী  » «   পানির উচ্চতা মাপার কাজে নিয়োজিত জুয়াভ  » «   রাইয়াদ আদ্দীন তিশান এর ১ম জন্মদিন উদযাপন  » «   দেশব্যাপী জামায়াতের হরতাল চলছে  » «   শাবি ছাত্রের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার  » «   আজ বিশ্ব মা দিবস  » «   নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ৬  » «   সাংবাদিকদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের আহ্বান রওশনের  » «   সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের নির্বাচন আজ  » «   নির্ঘুম রাতে ডাকাত আতঙ্ক এ ব্যর্থতা কার ?  » «   প্রচারণা শেষ : সিলেটের তিন উপজেলায় ভোটের লড়াই কাল  » «   জামায়াত হরতাল ডাকায় পিছিয়েছে এইচএসসি পরীক্ষা  » «   নিজামীর ফাঁসির রায় বহাল রাখায় সিলেটে আনন্দ মিছিল  » «  

এরশাদ আমার বন্ধু, আমিও একটু বেহায়া

arshadনিউজ ডেস্ক :: নারীদের প্রতি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বিশেষ দুর্বলতা আছে মন্তব্য করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বিগ্রেডিয়ার (অব.) আ স ম হান্নান শাহ বলেছেন, ‘এরশাদকে বিশ্ব বেহায়া বলে সবাই আখ্যায়িত করে। কিন্তু এরশাদ আমার বন্ধু। সেক্ষেত্রে আমিও মনে হয় একটু বেহায়া।’

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী প্রত্যাগত প্রবাসী দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘রাজধানী ঢাকা শহরে যেসব মন্ত্রী দায়িত্বে আছেন তাদের গাফিলতির কারণে গতকাল রাজধানী ডুবে গিয়েছিল। সেইদিন আর বেশি দূরে নয়, যেদিন আওয়ামী লীগও ডুবে যাবে। বিএনপি যদি রাজপথে ১০ শতাংশ জনগণও নামাতে পারে তাহলে এরপর দিন আওয়ামী লীগ সরকারের আর কোনো অস্তিত্ব থাকবে না।’

বিএনপির ৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও জাতীয় নেতাদের মুক্তির দাবি শীর্ষক এ আলোচনা সভায় হান্নান শাহ বলেন, ‘বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার একটি ব্যর্থ সরকার। তাই আওয়ামী লীগ সরকার যত তাড়াতাড়ি পদত্যাগ করবে ততই তাদের জন্য মঙ্গল। অন্যথায় তারা পালানোর পথ খুঁজে পাবে না।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘বিএনপির আন্দোলন চলছে এবং চলবে। আন্দোলনকে জোরদার করার লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে সারাদেশের জেলা পর্যায়ে কমিটিগুলো পুনর্গঠনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন বেগম খালেদা জিয়া।’

হান্নান শাহ বলেন, ‘১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মারা যাওয়ার পর তার জানাজায় একটি মানুষ খুঁজে পাওয়া যায়নি। অথচ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও তার ছোটছেলে আরাফাত রহমান কোকোর জানাজায় লাখো মানুষের ঢল নেমেছিল। এরই মধ্যে দিয়ে প্রমাণ হয়েছে জনগণ আওয়ামী লীগ নাকি বিএনপিকে চায়।’

আয়োজক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক এসএম সোহরাব হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন- বিএনপির যুববিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।

সর্বশেষ সংবাদ