বুধবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ফ্রান্স বাংলা প্রেস ক্লাবে’র ব্যানারে জামাতের প্রতিবাদ সভা  » «   ফরাসী পতাকার ৩ টি রং এর মানে কি?  » «   Victor Hugo এর সংক্ষিপ্ত জীবনী  » «   পানির উচ্চতা মাপার কাজে নিয়োজিত জুয়াভ  » «   রাইয়াদ আদ্দীন তিশান এর ১ম জন্মদিন উদযাপন  » «   দেশব্যাপী জামায়াতের হরতাল চলছে  » «   শাবি ছাত্রের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার  » «   আজ বিশ্ব মা দিবস  » «   নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ৬  » «   সাংবাদিকদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের আহ্বান রওশনের  » «   সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের নির্বাচন আজ  » «   নির্ঘুম রাতে ডাকাত আতঙ্ক এ ব্যর্থতা কার ?  » «   প্রচারণা শেষ : সিলেটের তিন উপজেলায় ভোটের লড়াই কাল  » «   জামায়াত হরতাল ডাকায় পিছিয়েছে এইচএসসি পরীক্ষা  » «   নিজামীর ফাঁসির রায় বহাল রাখায় সিলেটে আনন্দ মিছিল  » «  

ফের চাপের মুখে বিএনপি

bnpনিউজ ডেস্ক :: দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি রাজনৈতিক মাঠে অকেটাই নিস্ক্রিয়। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে আন্দোলনে নেমে সরকার ও তার দলের বাধা ও মামলার কারণে কোনঠাসা হয়ে পড়েছে দলটি।এদিকে সম্প্রতি দুই বিদেশি নাগরিক হত্যা, শিয়া সম্প্রদায়ের তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতিতে বোমা হামলা, গাবতলীতে পুলিশের এএসআই ও রাজধানীর শাহবাগে জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপনকে খুনসহ আরও নানান অপরাধের জন্য বিএনপি নেতাকর্মীদের দায়ী করছে সরকার।
এছাড়াও বিএনপিপন্থী খুলনা সিটি মেয়র মনিরুজ্জামান মনিকে বরখাস্ত ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিস মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে কারাগারে প্রেরণের কারণে ফের চাপের মুখে পড়েছে দলটি।

ফখরুলকে কারাগারে প্রেরণের পরে মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির বর্তমান মুখপাত্র ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, দেশে এখন যে রাজনীতি চলছে, এটাকে রাজনীতি বলা যায় না। রাজনীতির নামে একটি অপরাজনীতি চলছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা লক্ষ্য করছি- সরকার ছায়ার সাথে শত্রু শত্রু খেলায় লিপ্ত রয়েছেন। বিরোধী দল ও তাদের নেতাদের অকারণে সরকার শত্রু ভাবছে। অথচ বিরোধী দল ও এর নেতৃবৃন্দ গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ অনুসঙ্গ। আমরা মনে করি, সরকার দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেই প্রতিষ্ঠানটিকে (বিরোধী দল) ধ্বংস করার এক আত্মঘাতী কাজে নিজেদের দূঃখজনকভাবে জড়িয়ে ফেলেছে।

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডটকমকে বলেন, দেশে গণতন্ত্র নেই বলেই নানান অঘটন ঘটছে। আর এ জন্য সরকার হতাশাব্যঞ্জক হয়ে অন্যের উপর দোষ চাপাচ্ছেন। দেশে বর্তমানে যে নৈরাজ্য চলছে এটা আগে কখনো হয়নি। যেখানে গণতন্ত্র অনুপস্থিত সেখানে কোন কিছুই সুষ্ঠুভাবে চলতে পারে না। এজন্য সরকারের উচিত ‘ব্লেম গেম’ না খেলে সব দলকে ডেকে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশকে এগিয়ে নেয়া। আর এটা না করলে সহিংসতা আরও বাড়বে।

তিনি আরও বলেন, সরকার বিএনপির নেতাকর্মীদের প্রতি গণতান্ত্রিক আচরণ করছে না। হাজার হাজার নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে আটকে রেখেছে। এই সরকারের অগণতান্ত্রিক আচরণের বিরুদ্ধে যারা প্রতিবাদ করেছে সরকার সে সব মেয়রদের বরখাস্ত করেছে। এটা সম্পূর্ণ গণতন্ত্র বিরোধী।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) পল্টন থানার নাশকতার তিন মামলায় ফখরুলের জামিন আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠিয়েছেন ঢাকার মহানগর হাকিম মারুফ হোসেন। এদিকে গত শনিবার রাজধানীর শাহবাগে জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার বিকেলে নাশকতার মামলার কারণে খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র মনিরুজ্জামান মনিকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। এর আগে মামলা থাকার কারণে সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র এম এ মান্নান, রাজশাহীর মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন।

এছাড়াও গত ২৩ অক্টোবর (শুক্রবার) মধ্য রাতে হোসনি দালানের সামনে শিয়া সম্প্রদায়ের তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতিতে বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে একজন নিহতসহ শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) রাত পৌনে নয়টার দিকে রাজধানীর দারুস সালাম থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) ইব্রাহিম মিয়াকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এর আগে গত ২৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় ইতালির নাগরিক তাভেল্লা সিজারকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। এর ঠিক ৪দিন পরেই একই কায়দায় ৩ অক্টোবর রংপুরে খুন করা হয় জাপানের নাগরিক কুনিও হোশিকে।

সর্বশেষ সংবাদ