শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বড়লেখায় কলেজছাত্র প্রান্ত হত্যাকান্ড: ২ আসামীর রিমান্ড মঞ্জুর



আব্দুর রব, বড়লেখা:: বড়লেখায় কলেজছাত্র প্রান্ত চন্দ্র দাস (১৮) হত্যা মামলার গ্রেফতার ৫ আসামীর ২ জনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন বিজ্ঞ আদালত। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ইন্সপেক্টর ইয়াছিনুল হক হাজতি ৪ আসামীর ৫ দিনের রিমান্ড প্রার্থনা করেন। মঙ্গলবার রিমান্ড আবেদনের শুনানি অনুষ্ঠিত হলে বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হরিদাস কুমার মামলার এজাহারভুক্ত ৬ নম্বর আসামী চন্দন ও ৮ নম্বর আসামী নিভা রাণী দাসের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। গত ১২ নভেম্বর পুলিশ এ হত্যা মামলার প্রধান আসামী সুমন চন্দ্র দাসসহ ৫ আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে। বিজ্ঞ আদালত আসামীদেরকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

জানা গেছে, গত ৩১ অক্টোবর সকালে বড়লেখা উপজেলার বর্ণি ইউনিয়নের মিহারী নয়াগ্রামের পিসির (ফুফুর) বাড়ির একটি পরিত্যক্ত রান্নœাঘরের জানালার গ্রিলের সাথে মুখ বাঁধা দন্ডায়মান অবস্থায় প্রান্ত দাসের লাশ পাওয়া যায়। প্রান্ত উপজেলার সুজানগর ইউনিয়নের বাঘমারা গ্রামের সনত দাসের ছেলে। সে পিসির বাড়িতে থেকে এম মন্তাজিম আলী কলেজে লেখাপড়া করতো। এই ঘটনায় লাশ উদ্ধারের দিনই থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু হয়। পরবর্তীতে ময়না তদন্ত প্রতিবেদনে প্রান্তকে হত্যার বিষয়টি উঠে আসলে গত ১২ নভেম্বর তার বড়ভাই শুভ দাস পিসাতো ভাই সুমন চন্দ্র দাসকে প্রধান আসামি করে আরো ৭ জনের নাম উল্লেখ ও ৬-৭ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে থানায় হত্যা মামলা করেন। পুলিশ সুমন দাস, তার স্ত্রী নিভা রানী দাস, কাকাতো ভাই নিরেশ দাস, নিকেশ দাস ও ভাতিজা চন্দন দাসকে গ্রেপ্তার করে। আসামীদের আদালতে সোপর্দ করলে সুমন চন্দ্র দাস বড়লেখা আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হরিদাস কুমারের খাস কামরায় প্রান্ত হত্যার দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি প্রদান করে।

বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের এপিপি অ্যাডভোকেট গোপাল দত্ত জানান, কলেজছাত্র প্রান্ত হত্যা মামলার ৪ আসামীর ৫ দিনের রিমান্ড প্রার্থনা করেন সংশ্লিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তা। আসামীদের উপস্থিতিতে মঙ্গলবার এজলাসে রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। বিজ্ঞ আদালত ৪ আসামীর মধ্যে ২ আসামীর ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।