রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

”সিলেট অঞ্চলের মানুষদের উন্নয়নে অনন্য অবদান রেখেছেন দেওয়ান আহবাব”



সাবেক তত্তাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ইমাম উদ্দিন আহমদ চৌধুরী বলেছেন, দেওয়ান মোহাম্মদ আহবাব চৌধুরী জীবনব্যাপী সাহিত্য সাধনার মাধ্যমে বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চায় অনগ্রসর মুসলমানদেরকে পুনর্জীবিত করার প্রয়াস চালিয়েছেন। ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধ পূর্ববর্তী সকল আন্দোলনে তিনি রেখেছেন অসামান্য অবদান। পাশাপাাশি রাজনীতির মাধ্যমে সিলেট অঞ্চলের মানুষদের উন্নয়নে অনন্য অবদান রেখেছেন তিনি। ন্যায়-নীতি এবং সততার প্রশ্নে আপোসহীন দেওয়ান মোহাম্মদ চৌধুরীর সাহিত্য ও জীবনাদর্শ নতুন প্রজন্মকে চর্চা করতে হবে।
কৈতর সিলেট আয়োজিত ‘সমাজহিতৈষী-সাহিত্যসেবী দেওয়ান মোহাম্মদ আহবাব চৌধুরী: জীবন ও কর্ম’ স্মারক বক্তৃতা-১ ’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
কৈতর সিলেট-এর চেয়ারম্যান সেলিম আউয়ালের সভাপতিত্বে বুধবার (২রা জানুয়ারি) সন্ধ্যায় সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাহিত্য আসর কক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেমুসাসের সহ সভাপতি, শিক্ষাবিদ লে. কর্নেল (অব.) সৈয়দ আলী আহমদ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক দেওয়ান মাহমুদ রাজা চৌধুরী, কেমুসাস মতিন উদ-দীন আহমদ জাদুঘরের পরিচালক ডা. মোস্তফা শাহজামান চৌধুরী বাহার, যুক্তরাজ্যের ডেগেনহাম-রেইনহাম নির্বাচনী এলাকার কনজারভেটিভ পার্টির চেয়ারম্যান দেওয়ান চৌধুরী মাহদী এবং মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন কবি, সাংবাদিক মো. আব্দুল বাছিত।
সিলেট এক্সপ্রেসের স্টাফ রিপোর্টার গল্পকার তাসলিমা খানম বীথির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কেমুসাসের সহ সাধারণ সম্পাদক গবেষক সৈয়দ মবনু, প্রবাসী কবি সাংবাদিক সাঈদ চৌধুরী, কেমুসাসের কোষাধ্যক্ষ এডভোকেট আব্দুস সাদেক লিপন, সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্পাদক এডভোকেট আব্দুল মুকিত অপি। শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন সাদিক হোসেন এপলু। অনুষ্ঠানে সিলেটের সাহিত্য-সংস্কৃতি বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ছাড়াও দেওয়ান মোহাম্মদ আহবাব চৌধুরীর পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কেমুসাসের সহ সভাপতি, শিক্ষাবিদ লে. কর্নেল (অব.) সৈয়দ আলী আহমদ বলেন, দেওয়ান মোহাম্মদ আহবাব চৌধুরী এক বিরল প্রতিভার অধিকারী। আসাম প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেলো থাকাকালীন তিনি মুসলিমদের স্বার্থ সংরক্ষণ এবং অধিকার আদায়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। তাঁর অবদানকে জাতির সামনে তুলে ধরা কর্তব্য।
কেমুসাসের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক দেওয়ান মাহমুদ রাজা চৌধুরী বলেন, দেওয়ান মোহাম্মদ আহবাব চৌধুরীর জ্ঞান-গর্ব এবং বুদ্ধিদীপ্ত রচনাবলী মুসলিমদের জন্য বিশাল সম্পদ। এদেশের ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধ পূর্ববর্তী আন্দোলনে দেশ ও জাতির উন্নয়নে তিনি অবদান রেখেছেন। সিলেটের ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ব্যক্তিত্ব দেওয়ান আহবাবকে চর্চা এখন সময়ের দাবী। ইসলামী তাহজিব-তমদ্দুন সংরক্ষণে তাঁর ভূমিকা ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।
যুক্তরাজ্যের ডেগেনহাম-রেইনহাম নির্বাচনী এলাকার কনজারভেটিভ পার্টির চেয়ারম্যান দেওয়ান চৌধুরী মাহদী বলেন, দেওয়ান মোহাম্মদ আহবাব চৌধুরীকে চর্চার মাধ্যমে নিজেদেরকে সমৃদ্ধ করতে পারবো। আহবাব চৌধুরীর জীবন ও কর্মকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সাহিত্য পদক প্রদান করা হবে। ন্যায়ের প্রশ্নে আপোসহীন দেওয়ান আহবাব চৌধুরী সিলেটের এক সমৃদ্ধ ইতিহাস।
সভাপতির বক্তব্যে সেলিম আউয়াল বলেন, গুণীজনদেরকে সম্মান করতে হবে। বিশেষত দেওয়ান মোহাম্মদ আহবাব চৌধুরীর মত বিশাল ব্যক্তিত্বের জীবন পর্যালোচনা করে নিজেদেরকে আমরা সমৃদ্ধ করতে পারি। দেওয়ান আহবাবকে চর্চার মাধ্যমে বুদ্ধিবৃত্তিক সাহিত্য-সাধনায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।
উল্লেখ্য, দেওয়ান মোহাম্মদ আহবাব চৌধুরী ১৮৯৮ সালে সুনামগঞ্জের দোহালিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। বর্ণাঢ্য জীবনে তিনি আসাম প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য, কলকাতা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেলো ছিলেন। তিনি ১৯৭১ সালের ২৩শে মার্চ মৃত্যুবরণ করেন। বিজ্ঞপ্তি