বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিএনপি থেকে বিকল্পধারায় হেভিওয়েট নেতারা!



নিউজ ডেস্ক:: একাদশ জাতীয় নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই বিএনপিতে ভাঙনের সুর উঠেছে। শোনা যাচ্ছে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট নেতা বিকল্পধারায় যোগ দিচ্ছেন। খুব শিগগিরই এসব নেতাদের বিকল্পধারায় যোগদানের বিষয়টি দৃশ্যমান হবে।

একাধিক সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনের পর বিএনপিতে মতবিরোধ, দ্বন্দ্ব এবং হতাশার পুরো ফায়দা নিতে চায় বিকল্পধারা। বিকল্পধারার প্রধান অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরী বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব। বিএনপিতে তার অনুসারী কম না। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গ্রেপ্তারের পর দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বদরুদ্দোজা চোধুরীর কাছেই ধর্না দিয়েছিলেন।

পরে তারেক রহমানের নির্দেশে তিনি বি. চৌধুরীকে ছেড়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যান। অন্যদিকে বি. চৌধুরী আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহাজোটে যোগ দেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিকল্পধারার শীর্ষস্থানীয় একজন নেতা জানান, নির্বাচনের পর বিকল্পধারা বিএনপির দেড় শতাধিক বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে সক্ষম হয়েছে। তাদের সঙ্গে নিয়মিত বৈঠকও হচ্ছে। খুব শিগগিরই বিকল্পধারায় এসব নেতারা যোগ দেবেন।

বিকল্পধারার অন্যতম নেতা মাহী বি. চৌধুরী বলেছেন, ‘আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে বিকল্পধারা দ্বিতীয় বৃহত্তম রাজনৈতিক দল হিসেবে আবির্ভূত হবার চেষ্টা করবে। ২০২৩ সালে বিকল্পধারাই হবে এদেশের রাজনীতিতে অন্যতম প্রধান শক্তি।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য লে. জেনারেল (অব:) মাহবুবুর রহমানের সঙ্গে বিকল্পধারা চেয়ারম্যানের দু’দফা কথা হয়েছে। ‘জামায়াত’ ইস্যুতে দুইজন অভিন্ন মত দিয়েছেন। আর কিছু বিষয় চুড়ান্ত হলেই তিনি বিকল্প ধারায় যোগ দিতে পারেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার সঙ্গেও কথাবার্তা চলছে বলে জানা গেছে। তবে জীবনের শেষ প্রান্তে এসে ‘দল পরিবর্তনে’ তিনি খুব একটা আগ্রহী নন বলেই জানা গেছে।

বিএনপির আরেক নেতা ব্যারিস্টার জিয়াউর রহমান খানের বিকল্প ধারায় যোগদান সময়ের ব্যাপার মাত্র। এছাড়াও জাতীয় নির্বাহী কমিটির আরো অন্তত ৩০ জন বিকল্পধারায় যোগ দেয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছে বলে জানা গেছে।

বিকল্পধারার একজন নেতা বলেন, শুধু কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নয় স্থানীয় নেতৃত্ব থেকে বিএনপির বেশ কিছু নেতা নিজেরাই বিকল্পধারায় যোগ দেয়ার ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছে। উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরেই মাঠ পর্যায়ে বিএনপি নেতৃত্বের অনেকেই তাদের সাবেক নেতার সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছেন।

একটি সূত্র বলছে, উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে না-এরকম আনুষ্ঠানিক ঘোষণা হলেই বিএনপি থেকে বিকল্পধারায় যোগ দেয়ার হিড়িক পরবে নেতা-কর্মীদের। বিকল্পধারা উপজেলা নির্বাচনের মাধ্যমে তার নতুন শক্তি জানান দেবে বলে জানিয়েছেন দলের শীর্ষ নেতারা।