শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ঢাকায় পরিত্যক্ত বাড়ি ৬৪০৯



নিউজ ডেস্ক:: গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, রাজধানী ঢাকায় পরিত্যক্ত বাড়ির সংখ্যা ৬ হাজার ৪০৯টি। এ বাড়িগুলো শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং ডিমান্ড নোট হোল্ডারদের অনুকূলে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। কয়েকটি বাড়ি মালিকদের অনুকূলে অবমুক্ত করা হয়েছে।

সোমবার জাতীয় সংসদে হাজী মো. সেলিমের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান তিনি।

র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প এলাকায় ২০০৩-১৯ সাল পর্যন্ত ৩, ৫, ৭, ৭.৫ ও ১০ কাঠা আয়তনের মোট ২৪ হাজার ৬৯৬টি প্লট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ওই প্লটগুলো মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও সমদর্যাদা সম্পন্ন বিচারপতি, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, সরকারি চাকরিজীবী, স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার চাকরিজীবী, সশস্ত্রবাহিনী, ব্যবসায়ী ও শিল্পপতি, বেসরকারি চাকরিজীবী, শিল্প-সাহিত্যিক ও ক্রীড়াবিদদের বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য ক্যাটগরিতে মূল অধিবাসী, ক্ষতিগ্রস্ত এবং ১৩/এ ধারা অনুযায়ী সংরক্ষিত ক্যাটাগরিতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

২৫৫ ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের মধ্যে ২৫ অতি ঝুঁকিপূর্ণ
এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে পূর্তমন্ত্রী বলেন, ২০১০ সালে রাজউক কর্তৃক প্রাথমিকভাবে ৩২১টি ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। ২০১৬ সালের জরিপে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের সংখ্যা একই হয়। এগুলোর মধ্যে ২৫টি ভেঙে ফেলা হয়। আরও ২৮টি ভবন ভেঙে মালিকরা নতুন ভবন নির্মাণ করেছে। তবে বাকি ২৫৫টি ভবনের মধ্যে ৩৫টি অতি ঝুঁকিপূর্ণ এবং বাকি ২২০টি বাহ্যিক ঝুঁকিপূর্ণ ভবন রয়েছে। চূড়ান্তভাবে ঝুঁকিপূর্ণ চিহ্নিত করে এসব ভবন ভেঙে ফেলা হবে।