বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

এবার দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই নারী ফুটবলারদের



নিউজ ডেস্ক:: মিয়ানমারের সফল মিশন শেষে এবার বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের সামনে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। ১২ মার্চ নেপালের বিরাট নগরে শুরু হবে এই অঞ্চলের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। বাংলাদেশ সাফের সর্বশেষ আসরের রানার্সআপ।

এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্বে রানার্সআপ হয়ে সোমবার গভীর রাতে দেশে ফিরেছে নারী ফুটবলাররা। কিশোরীদের টুর্নামেন্ট হলেও বাফুফে মিয়ানমারে পাঠিয়েছিল জাতীয় দলের খেলোয়াড়দেরও। ওখানে সিনিয়র ফুটবলাররা আলাদা অনুশীলন করেছেন।

আগামী সেপ্টেম্বরে থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্বটি আদতে ২০২০ সালের ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপেরও বাছাই। যে কারণে বাংলাদেশের মেয়েদের সামনে এখন বিশ্বকাপে খেলার হাতছানি। থাইল্যান্ডে ৮ দলের লড়াইয়ে সেরা তিনে থাকতে পারলেই বাংলাদেশের মেয়েরা প্রথমবারের মতো পাবে বিশ্বকাপের টিকিট ।

তার আগে বাংলাদেশের নজর এখন সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে। ফাইনালে খেলার লক্ষ্য নিয়ে নেপাল যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে দল। ১০ মার্চ সকালে নারী জাতীয় ফুটবল দল যাবে নেপালে। এবার বাংলাদেশ খেলবে ‘এ’ গ্রুপে ভুটান ও নেপালের সঙ্গে। অন্য গ্রুপে ভারত, মালদ্বীপ ও শ্রীলংকা।

মিয়ানমার থেকে নারী ফুটবল দল ঢাকায় এসেছে রাত ১ টায়। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে মেয়ের মিষ্টিমুখ করে ও ফল দিয়ে বরণ করেছেন বাফুফের মহিলা উইংয়ের চেয়ারম্যান ও ফিফা কাউন্সিল মেম্বার মাহফুজা আক্তার কিরণ। উপস্থিত ছিলেন বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ।

মিয়ানমারে তিনটি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশের মেয়েরা। প্রথম ম্যাচে ১০-০ গোলে ফিলিপাইনকে উড়িয়ে দিয়ে দ্বিতীয় ম্যাচে ১-০ গোলে স্বাগতিক মিয়ানমারকে হারিয়ে চূড়ান্ত পর্ব নিশ্চিত করেছিল বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচে চীনকে হারাতে পারলে হতে পারতো গ্রুপ সেরা। কিন্তু নারী ফুটবলে অনেক এগিয়ে থাকা চীনের কাছে বাংলাদেশ ৩-০ গোলে হেরে রানার্সআপ হয়ে ফিরছে ঘরে।