শনিবার, ২৩ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রীর অনুমতির অপেক্ষায় বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চলচ্চিত্র



বিনোদন ডেস্ক:: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে হলিউডডে নির্মিত হতে যাচ্ছে চলচ্চিত্র ‘ফাদার অব দ্য নেশন’। ছবিটির নির্মাণে করবেন হলিউডের অস্কার জয়ী চলচ্চিত্র নির্মাতা অলিভার স্টোন।

ইতিমধ্যেই গল্প ও চিত্রনাট্য তৈরি হয়ে গেছে। ১৫ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে মিটিং করবে ছবিটির বাংলাদেশি প্রযোজক। তারপরই আসবে ৪০ মিলিয়ন ডলার ব্যায়ে নির্মিত এই ছবির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা।

এটি বাংলাদেশ থেকে সুপারভাইজ করবেন নাসিরউদ্দিন ইউসূফ বাচ্চু। এমন খবরই গেল কয়েকদিন ধরে প্রকাশ হয়েছে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চলচ্চিত্রটি ঘিরে।

এদিকে ছবিটির ব্যাপারে খোঁজ নিতে গিয়ে জানা গেল, কেবল ছবিটি নির্মাণের পরিকল্পনাই হয়েছে। এখনো সবকিছুই অনিশ্চিত। ছবিটি বাংলাদেশ প্রযোজনা করবে নতুন একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। এর কর্ণধার দেশের জনপ্রিয় একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সিইও। তবে ছবিটি তিনি বানাতে যাচ্ছেন নিজের অন্য একটি প্রতিষ্ঠানের ব্যানারে।

এখনো ছবির কোনো কিছুই চূড়ান্ত নয়। তাই নিজের নামটিও প্রকাশ্যে আনতে চান না। তিনি বলেন, ‘যেভাবেই হোক আপনারা জেনেছেন ‘ফাদার অব নেশন’ ছবিটি আমি নির্মাণ করতে যাচ্ছি। এটা সত্যি এই পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। বিগ বাজেটে আন্তর্জাতিক মানের সিনেমা হবে এটি।

এর চিত্রনাট্যও তৈরি হয়ে গেছে। তবে পুরো ব্যাপারটা নির্ভর করছে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর। তার অনুমতি পেলে তবেই সিনেমাটি হবে। আমরা তার অনুমোদনের অপেক্ষা করছি। তার আগে সবাইকে অনুরোধ করবো মনগড়া কোনো তথ্য ছড়িয়ে সুন্দর পরিকল্পনাটিকে যেন নষ্ট না করা হয়।’

এই প্রযোজক জানান, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মিটিংয়ের জন্য কোনো তারিখ এখনো চূড়ান্ত হয়নি। তিনি যেদিন সময় দেবেন সেদিনই চিত্রনাট্য তাকে পড়ে শোনানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি মিললে তবেই ছবিটির বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

কে পরিচালনা করবেন আর কেই বা অভিনয় করবেন বঙ্গবন্ধুর চরিত্রে সেটাও জানা যাবে তখনই। তবে হলিউডের নির্মাতা ও শিল্পীরা এর সঙ্গে জড়িত থাকবেন।

এদিকে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তৈরি হচ্ছে আরও একটি বায়োপিক। ভারত-বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় ছবিটি নির্মাণ করবেন শ্যাম বেনেগাল। এই ছবির সঙ্গে বাংলাদেশ সরকার সরাসরি যুক্ত থাকবে।

এমনি সময়ে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আরও একটি চলচ্চিত্র নির্মাণকে প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দেবেন কী না সে বিষয়ে প্রশ্ন করলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই প্রযোজক বলেন, ‘এটাও নির্ভর করে প্রধানমন্ত্রীর উপর। তবে আমি আশাবাদী আন্তর্জাতিক মানের ছবি নির্মাণের যে পরিকল্পনা আমরা নিয়েছি সেটি প্রধানমন্ত্রীর পছন্দ হবে। দেখা যাক কী হয়।’