বুধবার, ২২ মে ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শাবিতে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন



শাবি প্রতিনিধি:: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবি) নানান আয়োজনে যথাযথ মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। দিবস উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রচার, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, স্কুল শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এদিকে শাবি প্রেসক্লাবের আয়োজনে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে ‘খবরের পাতায় স্বাধীনতার কথা’ আলোকচিত্র প্রদর্শনী করেন এবং স্কুল শিক্ষার্থীদের মাঝে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী বই উপহার দেন।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টায় মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করা হয়। পতাকা উত্তোলন শেষে সকাল পৌনে ৮টার দিকে শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে শাবির মুক্তমঞ্চে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণ প্রচার করা হয়।

সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শাবিতে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন শাবি উপাচার্য। উপাচার্যের পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে শাবির শিক্ষক সমিতি, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, হল প্রশাসন, কর্মকর্তা অ্যাসোসিয়েশন, ছাত্র সংগঠন, সাংস্কৃতিক সংগঠন গুলো একে একে শহিদ মিনার ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সকাল ৯টার থেকে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে মুক্তমঞ্চের সামনে স্কুল শিক্ষার্থীদের নিয়ে খেলাধুলা, গান ও কবিতা আবৃত্তির প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হাসন রাজা মিলনায়তনে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভার অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ সকলকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘আজকের এই দিনে স্মরণ করছি স্বাধীনতার ঘোষক সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। যার সঠিক ও দুরদর্শী নেতৃত্বে আমরা পেয়েছিলাম প্রিয় স্বাধীনতা। স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে ঠিকই কিন্তু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গঠনের কাজ এখনো অসম্পন্ন রয়ে গেছে। জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের সকলকে যার যার অবস্থান থেকে কাজ করে সোনার বাংলা গড়ার অসম্পন্ন কাজ সম্পন্ন করতে হবে।’

সম্প্রতি হামলার শিকার শাবি শিক্ষার্থী রাজীব সরকারের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘আল্লাহর অশেষ রহমতে তিনি বেঁচে গেছেন। যারা হামলা করেছে তাঁরা ছাত্রলেবাসধারী সন্ত্রাস। তোমাদের উচিৎ তাদের চিহ্নিত করে বের করে দেওয়া। ছাত্রলীগের নাম ধরে যারা এমন কাজ করে তাদের কঠোর হাতে দমন করা হবে।’

আলোচনা সভায় উদযাপন কমিটির আহবায়ক ও শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এস এম সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন। শাবি রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেনের সঞ্চালনায় এসময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. মো. জহির বিন আলম, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল গণি, সেন্টার অব এক্সিলেন্সের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আখতারুল ইসলাম, ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রাশেদ তালুকদার, অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম, অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি জনাব মুর্শেদ আহমেদ, সহায়ক কর্মচারী সমিতি সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মো. বিল্লাল মিয়া, শাবি শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুহুল আমীন ও সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান।

পরে বিকাল ৪টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চে ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহণে মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের সংগঠন শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের উদ্যোগে একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের ডকুমেন্ট হিসেবে খবরের কাগজের আলোকচিত্র প্রদশর্নী ও স্কুল শিক্ষার্থীদের মাঝে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী বিতরণ করা হয়েছে। সকাল সাড়ে আটটায় শাবির কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ভবনের সামনে আয়োজিত ‘খবরের পাতায় স্বাধীনতার কথা’ আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন শাবি প্রেসক্লাবের সভাপতি জিয়াউল ইসলাম এবং সঞ্চালনা করেন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জুনেদ আহমদ।